দুইশতাধিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন দৌলতপুরে ব্রডব্যান্ড কার্নিভাল ইন্টারনেটের তার কেটে দিয়েছে দুবৃর্তরা

ছবি: বৈদ্যুতিক খুটির কাছে কেটে দেওয়া ইন্টারনেট সংযোগের তার পড়ে আছে।

দৌলতপুর (কুষ্টিয়া) প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলাতে বাজুডাঙ্গা গ্রাম থেকে তারাগুনিয়া থানার মোড় পর্যন্ত প্রায় ৩ কিঃমিঃ সড়কে ৫০টি বৈদ্যুতিক খুটিতে থাকা ব্রডব্যান্ড কার্নিভাল ইন্টারনেটের তার কেটে দিয়েছে দুবৃর্তরা। ফলে ঐ এলাকার প্রায় দুই শতাধিক গ্রাহকের ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে। এব্যাপারে দৌলতপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

প্রাপ্ত অভিযোগে জানাযায়, দৌলতপুর উপজেলার কার্নিভাল ইন্টারনেট এর জোনাল ইনচার্জ হিসেবে দায়িত্ব প্রাপ্ত মেহেদী হাসান বাপ্পী অভিযোগে উল্লেখ্য করেছেন, আমি কার্নিভাল ইন্টারনেট এর জোনাল ইনচার্জ হিসেবে দায়িত্ব প্রাপ্ত হয়ে দৌলতপুর উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় গ্রাহককে লাইন সংযোগ দিয়ে ইন্টারনেট সেবা প্রদান করে আসছি।

এমতাবস্থায় গত ২৮/০৬/২০২০ ইং তারিখে সকাল আনুমানিক
১০.০০ টার সময় দৌলতপুর থানাধীন কৈপাল এলাকার মসজিদের সামনের খুটিতে ইন্টারনেট লাইন সংযোগের সময় ১। মোঃ নাঈম (২৭) পিতা মোঃ মন্টু ড্রাইভার, সাং তারাগুনিয়া শালিমপুর হিসনাপাড়া রোড ২। মোঃ কোরবান আলী (৩৫) পিতা আওয়াল সাং তারাগুনিয়া শালিমপুর ৩।

মোঃ জুবায়ের (৩৫) পিতা অজ্ঞাতসহ আরোও ৩/৪ জন আমার এই ইন্টারনেট সেবার প্রতি ঈশ্বার্নিত হয়ে বিভিন্ন ভাবে ক্ষয়ক্ষতি করার ষড়যন্ত্র ও হুমকি প্রদান সহ মিথ্যা মামলা দেওয়ার ভয় দেখায়। তারই ধারাবাহিকতায় গত ইং ০৬/০৭/২০২০ তারিখ রাত আনুমানিক ০২.০০ টার সময় হঠাৎ ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ হয়ে যায়।

পরবর্তীতে একই তারিখ সকাল আনুমানিক ০৮.০০ টার সময় আমি সহ আমার তত্বাবধানে থাকা অন্যান্য কর্মচারীরা ইন্টারনেট লাইন চেক করতে গেলে দেখতে পায় যে বাজুডাঙ্গা গ্রামের আল-সালেহ অফিস এর সামনে বৈদ্যুতিক খুটি থেকে শুরু করে তারাগুনিয়া বাজার পর্যন্ত বিভিন্ন স্থানে ইন্টারনেট সংযোগ লাইনের অফটিক ফাইবার কাটা যার ক্ষতি আনুমানিক ১,৮০,০০০/= (এক লক্ষ আশি হাজার) টাকা।

তিনি অভিযোগে আরোও উল্লেখ্য করেন, অভিযুক্ত তিনজন সহ তার লোকজন আমার ইন্টারনেট গ্রাহক সেবা প্রদানে ঈশ্বার্নিত হয়ে রাতে ইন্টারনেট লাইনের অফটিক ফাইবার কেটে দিয়েছে বলে আমার সন্দেহ হয়। বিষয়টি আমি কার্নিভাল ইন্টারনেটের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলাপ আলোচনা করে ইন্টারনেট লাইনের ক্ষতি ও শাস্তি দাবী করে তাদের বিরুদ্ধে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছি।