নেতাকর্মীদের চাঙ্গা রাখতে খিচুড়িভোজ

195

দৌলতপুর প্রতিনিধি : কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি বুলবুল আহমেদ টোকেন চৌধুরী সমর্থিত তৃণমূল আওয়ামী লীগ কর্মীদের চাঙ্গা রাখতে খিচুড়িভোজের আয়োজন করা হয়। গত শুক্রবার সন্ধ্যার পরে যুবলীগের প্রধান কার্যালয় আল্লারদর্গা বাজারে যুবলীগের সভাপতি বুলবুল আহমেদ টোকেন চৌধুরীর অফিসে খিচুড়িভোজের আয়োজন করেন। ভোজে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা অংশ নেয়।

সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব রেজাউল হক চৌধুরীর কনিষ্ঠ পুত্র ইমরান হোসেন কলিংস চৌধুরীর ও জেলা পরিষদের সদস্য লোটন চৌধুরী নেতৃত্বে আয়োজনটির সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন স্থানীয় আওয়ামীলীগ ,যুবলীগ, ছাত্রলীগের নেতা কর্মীরা। জানা যায়, যুবলীগ নেতা বুলবুল আহমেদ টোকেন চৌধুরী রাজনৈতিতে আগমনের পর থেকেই রাজনৈতিক বিচক্ষনতা ও দক্ষতায় দলমত সকলের কাছেই জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন। এরপর তার রাজনৈতিক কমর্কান্ড মুগ্ধ হয়ে দলের পক্ষ থেকে দৌলতপুর উপজেলা যুবলীগকে আরো শক্তিশালী করতে সভাপতির দায়িত্ব দেওয়া হয় এই তরুন নেতাকে ।

দায়িত্বভার গ্রহন করে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ এর আস্থা ধরে রাখতে কঠোর পরিশ্রম করে দৌলতপুর উপজেলা যুবলীগকে সক্রিয় ও শক্তিশালী একটি সংগঠন হিসেবে সভার কাছে উপস্থাপন করেন। দৌলতপুর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি হিসেবে টোকেন চৌধুরী দ্বায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে সরেজমিনে মাঠে নেমে তার সমস্ত মেধা যোগ্যতা দিয়ে যুবলীগ নেতাকর্মীদের সুসংগঠিত করে একটি শক্তিশালী দল হিসেবে গড়ে তুলতে কাজ অব্যাহত রেখেছেন।

যার ফলে, তাকে একজন সফল রাজনৈতিক নেতা হিসেবে আগামীতে ও জনগণের পাশে দেখতে চান দৌলতপুর উপজেলার সকল অংঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীসহ সমর্থকরা। ইতিমধ্যে যুবলীগ সভাপতি বুলবুল আহমেদ টোকেন চৌধুরী যুবলীগের নেতাকর্মীদের সক্রিয় করে তুলতে দিনের পর দিন মাঠে নেমে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি দৌলতপুর উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নের নেতা কর্মীদের চাঙ্গা রাখতে নিজে উপস্থিত থেকে মিটিংসহ দলীয় কাজ করে চলেছেন।

এছাড়াও প্রতিটি ওয়ার্ড এর প্রতিটি কার্যনির্বাহী কমিটির নেতাকর্মীদের সঙ্গে বর্ধিত সভা অব্যাহত রেখে চলেছেন তিনি। এতে করে, যুবলীগের নেতাকর্মীরা নতুন করে পুরোদমে নবউদ্দ্যেমে সুসংগঠিত হয়ে উঠছে। নেতাকর্মীরা জানান টোকেন চৌধুরী একজন সৎ যোগ্য ও পরিক্ষীত নেতা। তার মত কর্মঠ নেতা আমরা আশা করি তার নেতৃত্বে দৌলতপুরের চিত্র পাল্টে যাবে। দৌলতপুরবাসীর বক্তব্য আগামীতে একজন যুবক বয়সী নেতাই আমাদের পছন্দ। সে ক্ষেত্রে মিষ্টিভাষী সদালাপী টোকেন চৌধুরী আছে তাদের পছন্দের শীর্ষে।

বুলবুল আহমেদ টোকেন চৌধুরী বলেন “দল ক্ষমতায় আছে বলে নেতাকর্মীর খোঁজখবর নিতে হবে না এটা তো ঠিক না, আমি মনে করি তৃণমূল কর্মীদের সঙ্গে সবসময় যোগাযোগ রক্ষা করা প্রয়োজন। তাই দৌলতপুর বাসীর পাশে আমি ছিলাম আছি এবং আগামীতে থাকবো ইনশাআল্লাহ।