ভেড়ামারায় কুচিয়ামোড়া গ্রামে নেশা কেড়ে নিল যুবকের প্রান।

জান্নাতুল ফেরদৌস: কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় মরননেশা সলিউশন আঠা কেড়ে নিল যুবকের প্রান। আজ শনিবার ১০টায় নেশায় আক্রান্ত কুষ্টিয়ার ভেড়াামারা উপজেলার কুচিয়ামোড়া গ্রামের মোজাফফর আলীর পুত্র শিমুল (২৫) এর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে ভেড়ামারা থানা পুলিশ। ধারনা করা হচ্ছে, সলিউশন আঠা পলিথিনে ঠেলে নাক ডুবিয়ে ঘ্রান নিয়ে নেশা করতো এই যুবক ছাড়াও আরো কয়েকজন।

পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ১টি কোটা এবং ৫/৬টি সলিউশন আঠা থাকা পলিথিন উদ্ধার করেছে। ভেড়ামারার কুচিয়ামোড়া ক্যাম্পের ইনচার্জ এস আই আব্দুল হামিদ জানিয়েছেন, নিহত শিমুল একজন নেশাগ্রস্থ যুবক। সে সলিউশন আঠা পলিথিনে ঢেলে নেশা করতো। বাড়ির পাশের একটি বাগানে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তার গলায় মাফলার লাগানো ছিল। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করা হয়েছে।

ভেডামারা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ খন্দকার শামীম উদ্দিন জানিয়েছেন, গলার মাফলার ঝুলিয়েই আত্মহত্যা করেছে ওই যুবক। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত শেষে মৃত্যুর প্রকৃত রহস্য জানা যাবে। এ বিষয়ে থানায় অপমৃত্যু মামলা রেকর্ড করা হয়েছে।

এলাকাবাসী দাবী করেছে, কাঠ মিস্তি এবং পানির মিস্তিরা মুলত ব্যবহার করে থেকে সলিউশন আঠা। এই আঠা পলিথিনে ঠেলে নাকে ঘ্রান নিয়ে নেশা করে কতিপয় যুবক। এতেই প্রান গেল শিমুলের। হার্ডওয়ারের দোকানে পাওয়া যায় এই সলিউশন আঠা। একমাত্র মিস্তিদের কাছেই এই আঠা যেন বিক্রি করা হয়, তার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা। নিহত শিমুল ঈশ্বরদী ইপিজেড এ কর্মরত ছিল।