সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থী সমাগম,

দৌলতপুর প্রতিনিধি: সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থী সমাগম, বেতন আদায়, এমনকি প্রশ্ন আর পরীক্ষার খাতা বাড়িতে পাঠিয়ে অর্ধ বার্ষিক পরীক্ষা সবই নিচ্ছে কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার একটি বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রহিমা বেগম একাডেমি।

তবে সারাদেশে যেখানে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম বন্ধ সেখানে সম্পূর্ণ অনলাইন পদ্ধতি ছাড়া সরকারি-বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সমাগম করে কোন কার্যক্রম করা যাবে না,বলে সাফ জানিয়েছেন, দৌলতপুর মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সরদার আবু সালেক। গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, স্কুলের আঙ্গিনা পরিচ্ছন্ন রাখা বা নিরাপত্তার জন্য ক্যাম্পাসে কাজ করা ছাড়া সকল প্রকার কার্যক্রমই নিষেধ।

এদিকে রোববার সকালে সরেজমিনে দেখা যায় রহিমা বেগম একাডেমিতে শিক্ষার্থী-অভিভাবক সমাগম করে বেতন আদায় করা হচ্ছে, অর্ধ বার্ষিক পরীক্ষার জন্য শিক্ষার্থীদের বাড়িতে সরবারাহ করা হচ্ছে প্রশ্ন ও লেখার খাতা।

বিদ্যালয়টি আর্থিক স্বার্থের দিকে ভেবেই এধরণের কার্যক্রম করোনা পরিস্থিতিতে চালিয়ে যাচ্ছে বলে মন্তব্য পরিচয় প্রকাশে অনিচ্ছুক সংশ্লিষ্টদের।

স্কুলে বসে রশিদ কেটে টাকা আদায় প্রসঙ্গে কোন সদুত্তর দিতে পারেনি প্রধান শিক্ষক মোহসিন রেজা। তিনি বলেন, অনলাইনে শিক্ষার্থীদের ক্লাস নিচ্ছি,সব শিক্ষার্থী অনলাইনে ক্লাস করতে পারেনা এজন্য বাড়িতে বসে পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে। বেতন প্রসঙ্গে তিনি বলেন– আমরা কাউকে চাপ দিচ্ছি না,স্বেচ্ছায় যারা দিচ্ছে তাদের টা নেয়া হচ্ছে।

অন্যদিকে খোদ শিক্ষার্থীদের অভিযোগ– অনলাইন ক্লাসে তারা কিছুই শিখতে পারেনি। বেতন এবং পরীক্ষার ফিস আদায়ের জন্য স্কুল কর্তৃপক্ষ বাড়িতে বসে পরীক্ষা দেয়ার ব্যবস্থা করেছে। এমন পরীক্ষা শিক্ষার্থীদের কোন কাজে আসবেনা বলেও দাবি তাদের।

অপরদিকে, বিদ্যালয়টি ইউনিয়ন পর্যায়ে থাকা বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সরকার নির্ধারিত বেতন-ফিসের চাইতে অতিরিক্ত টাকা নিয়ে আসছে বলেও তথ্য পাওয়া গেছে।

সামাজিক দুরত্ব বা জরুরি স্বাস্থ্যবিধির কোনটাই মানছেন না এই একাডেমি কর্তৃপক্ষ। এবিষয়ে একাডেমির কর্তৃপক্ষের সাথে স্থানীয় শিক্ষা প্রশাসন কথা বলেছেন বলে জানা গেছে।