দৌলতপুরে মার্ডার মামলাকে প্রভাবিত করতে আসামীর বাড়ী নিজে ভাঙ্গচুর

209

দৌলতপুর প্রতিনিধি: কুষ্টিয়া দৌলতপুর উপজেলার মরিচা ইউনিয়নের বালির দিয়ার গ্রামে কলা গাছ কাটাকে কেন্দ্র করে ইউ পি চেয়ারম্যান  উপস্থিত শালিশ বৈঠকে প্রতিপক্ষের হামলায়,  জামাত মন্ডলের ছেলে মহিবুল মন্ডল (৩০) নামের এক যুবক নিহত হয়। এ বিষয়ে এলাকাবাসী জানান, চেয়ারম্যান এর বাড়িতে বুঝে উঠার আগে হামলা চালায় লাল্টু তার বাহিনি দিয়ে।

তার পরে মহিবুল নিহত হয় লাশ ময়না তদন্ত শেষে বৃহস্পতিবার  দাফন হয়। হঠাৎ শুক্র বার সকালে আসামীরা দাবি করেন তাদের বাড়ী ঘর লুটপাট  ও ভাঙ্গচুর হয়েছে। এলাকাবাসী দাবি করেন মার্ডার মামলা প্রভাবিত করতে আসামীরা নিজে নিজের ফসল ও বাড়িঘর লুটপাট  ভাঙ্গচুর করেছে।  মহাবুলের স্ত্রী ও পিতা জানান, আসামিরা আমাদের মামলা কে প্রভাবিত করার জন্য হঠাৎ  বাড়িঘর ভাঙ্গচুর ও লুটপাটের অপবাদ দিচ্ছে। আমরা প্রধান মন্ত্রীর কাছে দাবি করছি মামলার যেন সুষ্ঠ তদন্ত হয়।

এ বিষয়ে মরিচা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান জানান, লাল্টু সালিশী বৈঠকে উপস্থিত হয়ে হঠাৎ কিছু বুঝে উঠার আগেই তার সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে হামলা চালায় এবং মহাবুল সহ ৫ জন আহত হয়। মহাবুলের অবস্থা আশঙ্কাজনক হলে ডাক্তার ঢাকায় রের্ফাড করে। ঢাকায় যাওয়ার সময় পথের মাঝে মহাবুল মারা যায়।বৃহস্পতিবার লাশ দাফন হয় কিন্তু হঠাৎ শুক্রবার আসামীরা দাবি করেন তাদের বাড়িঘর ভাঙ্গচুর ও লুটপাট হয়েছে।

এটা মিথ্যা কথা মার্ডার মামলাকে প্রভাবিত করার জন্য আসামী পক্ষ নিজেরা নিজেদের মালামাল সরিয়ে ও ভাঙ্গচুর করে মামলাকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করছে। এ বিষয়ে সাবেক ভাইস- চেয়ারম্যান মইন উদ্দিন মহন জানান,লুটপাটের ঘটনা মিথ্যা যারা আহত ও মারা গেছে তারা এমনিতে ভিতু মানুষ আর তারা করবে লুটপাট ভাঙ্গচুর। এটা মামলা প্রভাবিত করার পাইতা করছে লাল্টু বাহিনীর সন্ত্রাসী রা।