1. zillu.akash@gmail.com : admi2017 :
  2. editor@dailynewsbangla.com : Daily NewsBangla : Daily NewsBangla
মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০৩:৩৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
সখীপুরে সড়ক সংস্কার ও ছাত্রী উত্ত্যক্ত বন্ধের দাবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন। টাঙ্গাইলে বছর না যেতেই ভেঙে ফেলতে হলো প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর। নাগরপুরে তথ্য অধিকার আইন বিষয়ক প্রশিক্ষণ।  রাজশাহী জেলার শ্রেষ্ট  সাব-ইন্সপেক্টর নির্বাচিত বাঘা থানার এস আই তৈয়ব  রাজধানীর ১৯ স্থানে বসবে পশুর হাট। আগামী ২ বছরের মধ্যে পৃথিবী হবে ডাটা নির্ভর : টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী। নাগরপুরে ভোক্তা অধিকারের অভিযানে ৪৭৫২ লিটার তেল জব্দ ও ন্যায্য মূল্যে তেল বিক্রির নির্দেশ মণিরামপুরে মাদ্রাসার নির্মাণাধিন ৪তলা ভবনের ছাদ থেকে কাঠ পড়ে শিক্ষার্থী আহত সরকারকে ব্যর্থতার দায় নিয়ে পদত্যাগ করা উচিত, বিএনপি চেয়ারপার্সন উপদেষ্টা মিনু রাজশাহীর পবায় সড়ক দুর্ঘটনায় ঝরে গেল তিনটি প্রাণ 

মধুপুরে করাত কল জব্দ খাল হতে কাঠ উদ্ধার

ডেইলী নিউজ বাংলা ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১ জুলাই, ২০২১

মধুপুর (টাঙ্গাইল)প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলের মধুপুরের কুড়াগাছা ইউনিয়নের পিরোজপুর বাজারের দক্ষিন পার্শ্বে জটাবাড়ী এলাকায় আজ দুপুরে গজারি কাঠ পাচারের অভিযোগে সাইফা করাতকলের চাকাসহ সকল যন্ত্রপাতি জব্দ করেছে মধুপুর বনবিভাগ। এ সময় তারা পিরোজপুর নাগরখালী খালে লুকিয়ে রাখা গজারি কাঠও উদ্ধার করে।

জানা যায়, মধুপুরের জটাবাড়ী গ্রামে সাইফা করাতকল স্থাপন করে দীর্ঘদিন ধরে কাঠ চিরাই ও বিক্রির ব্যবসা করছেন শহিদুল ইসলাম। তার করাত কলের বনজ সম্পদের ব্যবসার পাশাপাশি ক্রয়-বিক্রয় নিষিদ্ধ গাছও পাচার করেন বলে অভিযোগ উঠে। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে মধুপুর বনাঞ্চলের রসুলপুর জাতীয় উদ্যান সদর রেঞ্জের সহকারি বন সংরক্ষক মো. জামাল উদ্দিন অভিযান পরিচালনা করেন।

মধুপুর বনাঞ্চলের রসুলপুর জাতীয় উদ্যানের সহকারি বন সংরক্ষক মো. জামাল উদ্দিন জানান, বুধবার সকালে সাইফা করাত কলে অভিযান চালানো হয়। এ সময় ওই করাত কলের উত্তর পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া নাগরখালী খালে লুকিয়ে রাখা পাঁচ খন্ড পুরাতন গজারী কাঠ উদ্ধার করা হয়। অবৈধভাবে সংরক্ষিত বনের কাঠ পাচার ও ব্যবসা পরিচালনার জন্য করাত কলের চাকা ও অন্যান্য যন্ত্রপাতি জব্দ করা হয়।

অভিযানকালে করাতকলের মালিক শ্রমিক পালিয়ে যাওয়ায় কাউকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। তবে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান সহকারি বন সংরক্ষক। অপরদিকে করাত কলের মালিক শহিদুল ইসলাম জানান, আমি সরকারি নিয়ম মেনে লাইসেন্স নিয়ে বৈধভাবে করাতকলের ব্যাবসার পাশাপাশি কাঠ ক্রয়-বিক্রয়ের ব্যবসা করি।

কে বা কারা নাগরখালী পিরোজপুর খালে গজারী কাঠ রেখেছে আমি এ বিষয়ে কিছু জানি না। আমাকে ফাসানোর জন্য ষড়যন্ত্র করে এ কাঠ রাখা হয়েছে বলে তিনি জানান।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো সংবাদ