ফেন্সিডিলসহ ধরা পড়লো কারারক্ষী: দৌলতপুরে কড়া সিন্ডিকেটে দীর্ঘদিনের ব্যবসা

214

দৌলতপুর প্রতিনিধি: কুষ্টিয়া দৌলতপুর উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের গবরগাড়া গ্রামের রাজু চাকরি করেন জেল পুলিশে। মাদক ব্যবসা সেন্ডিকেটের কড়া প্রশ্রয়ে একাজে হাত পাকা রাজু’র। , কারারক্ষী রাজুসহ ৪ জন একটি প্রাইভেট কার গাড়িতে ১০০ বোতল ফেন্সিডিল সহ ধরা পড়ে সিরাজগঞ্জের বঙ্গবন্ধু সেতুতে।

এ বিষয়ে টাংগাইল সেতুর পূর্ব থানার অফিসার ইনচার্জ মোশারেফ হোসেন জানান গত শনিবার, ২০ এপ্রিল রাতে থানা টহল পুলিশ নিয়মিত টহলের সময়, প্রাইভেট কার থামিয়ে তল্লাশি চালালে ১০০ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করে গাড়িতে থাকা ৪ যুবককে আটক করে। আটক কৃতরা হলেন, কারারক্ষী রাজু,বর্তমানে বাগেরহাট কারাগারে কর্মরত আছেন।

কু্ষ্টিয়া জেলার পিয়ারাতলা গ্রামের আমিরুল ইসলামের ছেলে রাজু, দৌলতপুর উপজেলার দাড়ের পাড়া গ্রামের আকরামের ছেলে সবুজ/ ফয়সাল আহমেদ, পাকুড়িয়া গ্রামের ফয়সালের ছেলে সরোয়ার পারভেজ ও ভেড়ামারা উপজেলার সাহাবুল হোসেন। বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোশারফ হোসেন জানান, আসামীদের বিরুদ্ধে বঙ্গবন্ধুসেতু পূর্ব থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে নিয়মিত মামলা দায়ের শেষে টাঙ্গাইল কোর্ট হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

কিন্তু অনুসন্ধান করতে গেলে বেরিয়ে আসে অন্য তথ্য। তা হলো, কারারক্ষী রাজুর দাদা জোলি মন্ডল তার জন্মের পর থেকে দৌলতপুর পুর উপজেলায় দৌলতপুর ইউনিয়নের শেষে মথুরাপুর ইউনিয়নের প্রথমে ৪ নং ওর্য়াডে বসবাস করে। এবং রাজুর পিতা একই স্থানে বসবাস করেন। এবং রাজু দৌলতপুর ইউনিয়নের ডি জি এম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র। তাহলে তার গ্রাম পিয়ারাতলা কুষ্টিয়া কি করে হয়? এ বিষয়ে আর অনুসন্ধান করতে গেলে বের হয় সেন্ডিকেট জামালপুর ও পাকুড়িয়া গ্রাম থেকে রাতে ফেন্সিডিল এসে দৌলতপুর ইউনিয়নের গবরগাড়া গ্রামের মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে পৌছায়।

এর আগে দাড়ের পাড়া থেকে গবরগাড়া যেতে ফাঁকা মাঠের ভিতর প্রায় গাড়ি বোঝায় হতো কিন্তু স্থানীয় এলাকাবাসী নজরে আসাতে তারা ভেড়ামারা ও কু্ষ্টিয়ায় নিয়ে গাড়িতে তোলে বিভিন্ন মাদক। গবরগাড়া গ্রামে বেশ কিছু ব্যবসায়ী আছে তারা কৌশলী এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতার ছত্র ছায়ায় থাকে ভাল মানুষের বেশে। রেকর্ডকরা এসব তথ্যের ভিত্তিতে সিন্ডিকেটটির আগাগোড়া অনুসন্ধানের চেষ্টা চালাচ্ছেন স্থানীয় প্রশাসন ও সংবাদকর্মীরা।