1. zillu.akash@gmail.com : admi2017 :
  2. editor@dailynewsbangla.com : Daily NewsBangla : Daily NewsBangla
মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১:১০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
সামিট এন্ড বিজনেস এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ডে রিয়েল এষ্টেট ক্যাটাগরিতে এমারজিং ডেভেলপার অফ দ্যা ইয়ার পদকপ্রাপ্ত হয়েছে রিয়েল ক্যাপিটা গ্রুপ বোয়ালমারীতে ৪৮ হাজার টাকা হাতিয়ে নিলো বিকাশ চক্র দশমিনায় খালে বিষ প্রয়োগ করে মাছ নিধোন করায় মানববন্ধন। ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ : ইতিহাসের কলঙ্কিত অধ্যায়  ফরিদপুরে বিশ্ব নদী দিবস পালন বাবার লাশ বাড়িতে রেখে এস এসসি পরিক্ষা দিলো রানা প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা।  বোয়ালমারীতে দুর্গাপূজা উপলক্ষ্যে থানা পুলিশের মতবিনিময়সভা দশমিনায় নদী দিবস-২০২২ উদযাপন।  নিখোঁজের ২৯ দিনন পর এক নারী বোয়ালমারী থেকে উদ্ধার

ব্রীজটি এখন গলার কাটা।

ডেইলী নিউজ বাংলা ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৯ মে, ২০২২
কাজী মোস্তফা রুমি: অপরিকল্পিত ব্রীজটি কাজে আসছে না এলাকাবাসীর। ৫ বছর পেরিয়ে গেলেও স্বাভাবিক চলাচলের উপযোগী নয় ব্রীজটি। চলতে পারে না কোন প্রকার যানবাহন। এমনি এক আজব ব্রিজ নির্মাণ করছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগন। ব্রীজটি তৈরী করেছেন প্রায় ১৬ লক্ষ টাকা ব্যায়ে।তবে এলাকাবাসীর অভিযোগ ব্রীজটি এলাকার স্বার্থে নয় ব্যাক্তি স্বার্থে নির্মাণ করা হয়েছে এমন আজব ব্রীজ।
সরেজমিনে দেখা যায়, টাঙ্গাইলের মধুপুর পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ডের পুন্ডুরা চরপাড়া গ্রামে আকাশী দামপাড়া যাতায়াতের রাস্তায় একটি ছোট খালের উপড় নির্মিত হয়েছে এই আজব ব্রীজটি।দূর্যোগ ব্যাবস্হাপনা অধিদপ্তরের সেতু/ কালভার্ট কর্মসুচীর আ্ওতায় এ ব্রীজটি নির্মিত হয়েছে২০১৬-১৭ অর্থ বছরে। প্রকল্পের নাম আকাশী পুন্ডুরা -চরপাড়া মোঃ আদমের বাড়ীর পার্শ্বে সেতু নির্মাণ। ব্রীজটির দৈর্ঘ্য ২০ ফুট। এ ব্রীজটির নির্মাণ ব্যায় ধরা হয়েছে ১৫ লাখ ৯১হাজার ৭ শত ১৮ টাকা।
৫ বছর কেটে গেলেও ব্রিজের দুই পার্শে মাটি দ্ধারা ভরাট করা হয়নি। মাটি দ্ধারা ভরাট না করার ফলে যাতায়াতের উপযোগী হয়নি ব্রীজটি। ব্রীজের দুই পাশে খাড়া ঢালু থাকায় পায়ে হেটে চলাচল করতে পারলেও একটি রিক্সা ভ্যন নিয়ে চলাচল করা সম্ভব নয়। চলতে পারে না কোন যানবাহন। যে কারনে ব্রীজটি কোন উপকারে আসছে এলাকাবাসীর।
একাধিক এলাকাবাসী জানান ব্রীজটি অপরিকল্পিত ভাবে ব্যাক্তি স্বার্থে ব্রীজটি নির্মাণ করার কারনে কোন উপকারেই আসছেনা। এত টাকা ব্যায় করে ব্রীজটি নির্মাণ করায় ব্রীজের দুই পাশে মাটি না থাকায় কোন যানবাহন চলতে পারে না। বরং ব্রীজটি এলাকাবাসীর গলার কাটা হয়ে দাঁড়িয়েছে।
এক ষাটোর্ধ ব্যাক্তি বলেন এটা উন্নয়ন নয় বরং এলাকাবাসীর সাথে তামাশা করা। তিনি বলেন এলাকাবাসীর ব্রীজের প্রয়োজন। কিন্তু এমন ব্রীজ কারো প্রয়োজন নয়, যে ব্রীজ দিয়ে কারো উপকারে আসছেনা। ঠিকাদারের লাভের জন্যই এমন অকেজো ব্রীজ নির্মাণ করে রেখেছে সরকারে লাখ লাখ টাকা ব্যায় করে। এতে দেশের সম্পদ নষ্ট হয়েছে। ব্রীজটি কোন কাজে আসছে না।
এব্যাপারে ভূক্তভোগী এলাকাবাসী উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছেন। যাতে করে ব্রীজের দুই পাশে মাটি দ্ধারা ভরাট করে যাতায়াতের উপযোগী করে দেয়া হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো সংবাদ