1. zillu.akash@gmail.com : admi2017 :
  2. editor@dailynewsbangla.com : Daily NewsBangla : Daily NewsBangla
শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:১৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
রাসিক মেয়রের সহযোগিতায় হুইলচেয়ার পেলেন প্রতিবন্ধী জেসমিন খাতুন আসন্ন উপ-নির্বাচনে মহিলা সমর্থকদের রাসেলের পক্ষে ভোট প্রার্থনা ও পথসভা মহাদেবপুরে তথ্য অফিসের ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা অনুষ্টিত দশমিনায় চলছে পূজা মন্ডপে প্রস্তুুতি, ব্যস্ত সময় পার করছে মৃৎ শিল্পীরা দশমিনায় ইউপি সচিব ও তথ্য সেবক এর বিরুদ্ধে জন্ম সনদে অতিরিক্ত টাকা নেয়ার অভিযোগ দৌলতপুরে বাদশাহ্ এমপি’কে বরণ করতে হাজারো মানুষের ঢল দশমিনায় তানিয়া ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় আপীল বিভাগ খুনীদের ফাঁসি বহাল উৎসবমুখর পরিবেশে নওগাঁয় আদিবাসী উড়াও সম্প্রদায়ের ঐতিহ্যবাহী কারাম উৎসব পালিত চার লেন সড়ক উন্নীতকরণ কাজের উদ্বোধন করলেন রাসিক মেয়র লিটন পটুয়াখালী জেলা পরিষদ কর্তৃক স্থাপিত বীর মুক্তিযোদ্ধা ভাস্কর্য উদ্বোধন

সৈয়দপুরে রাতের আঁধারে খাদ্য সহায়তা নিয়ে ছোটেন তাঁরা

ডেইলী নিউজ বাংলা ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১ আগস্ট, ২০২১

নীলফামারী জেলা প্রতিনিধি: ‘আমাদের প্রিয় সৈয়দপুর’ নামক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের ১১ জন সদস্য। প্রত্যেকের হাতেই খাবারের প্যাকেট। কঠোর লকডাউনে খাদ্য সংকটে পড়া নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার মানুষদের জন্য ওই প্যাকেটগুলো নিয়ে রাতের আঁধারে ছুটে বেড়াচ্ছেন তাঁরা।

খাদ্য সামগ্রীর মধ্য রয়েছে চাল, ডাল, আটা, তেল, আলু ও কাঁচা মরিচ। তাঁদের এই খাদ্য সহায়তার কাজে নেই কোন আনুষ্ঠানিকতা।
এ উপজেলায় করোনাভাইরাসের সংক্রামণ হুর হুর করে বাড়ছে। গড়ে প্রতিদিন ২৫ জন করে আক্রান্ত হচ্ছেন। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে দেওয়া হয়েছে কঠোর বিধিনিষেধ।

এতে বিপাকে পড়েছেন খেটে খাওয়া নিম্নবিত্ব ও মধ্যবিত্ব পরিবারগুলো। বেশি সমস্যায় পড়েছেন মধ্যবিত্বরা। তারা না পারছেন কিছু চাইতে লক লজ্জার ভয়ে।আর এই লকডাউনের শুরু থেকে সংগঠনের আজিম, সাজু, সামিউল, রাজা, শাহবাজ, জয়, শাহজাদা, জীবন, ইমরান, সাকিব ও নওশাদ আনসারী সহ অন্যান্যরা পরিস্থিতির শিকার এসব পরিবারগুলোকে তাদের সামর্থনুযায়ী রাতে খাদ্য সহায়তা পৌছে দিচ্ছেন।

সরেজমিনে ঘুরে লোক লজ্জার ভয়ে চাইতে পারেন না এমন পরিবারের খোঁজ করে তাদের হাতে তুলে দিচ্ছে খাদ্যের থলে। গোলাহাট এলাকার আজিম (ছদ্মনাম) বলেন, স্ত্রী সন্তানদের নিয়ে ছোট সংসার। ফেরি করি আমি। কিন্তু লকডাউনে সব বন্ধ থাকায় সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছিলাম। চাইতে পারতেছিলাম না কারও কাছে।

ভাবতেও পারিনি রাতে ঘুম থেকে উঠিয়ে কেউ খাদ্য সহায়তা যাবে। আল্লাহ তাদের সর্বদা ভাল রাখুক। সংগঠনের আজিম, সামিউল, রাজাসহ অন্যানরা জানান তাঁরা মূলত রাতে বের হন এবং লকডাউনের পরিস্থিতিতে যারা আয় রোজগারে বিপাকে পড়েছেন তাদের খাদ্য সহায়তা দেন। মূলত সৈয়দপুরের মধ্যে গোলাহাটে বেশি অভাবি মানুষ তাই এই এলাকাকেই বেশি প্রাধান্য দিচ্ছেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ‘আমাদের প্রিয় সৈয়দপুর’ এর প্রতিষ্ঠাতা নওশাদ আনসারী বলেন, আমাদের সামর্থনুযায়ী খাদ্য সহায়তা প্রকৃত অসহায় মানুষজনের হাতে পৌঁছায় সেটা মাথায় রেখে এ কার্যক্রম চালানো হচ্ছে। ঈদের আগে ও ঈদের পরে জারিকৃত লকডাউনে এ পর্যন্ত আমরা রাতে বের হয়ে পরিস্থিতির শিকার এরুপ প্রায় দেড় শতাধিক পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দিয়েছি।

এই কার্যক্রম লকডাউন থাকাকালিন পর্যন্ত চলবে! সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মো. রমিজ আলম বলেন, ‘আমাদের প্রিয় সৈয়দপুর’ সংগঠনটি এ সংকটকালীন যেভাবে পাশে দাঁড়িয়েছে সত্যিই তা প্রশংসনীয়। অন্যদের এমন কাজে এগিয়ে আসার আহবান জানান তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো সংবাদ