1. zillu.akash@gmail.com : admi2017 :
  2. editor@dailynewsbangla.com : Daily NewsBangla : Daily NewsBangla
গোয়ালন্দে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করায় ড্রেজার মেশিন ধ্বংস - dailynewsbangla
মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১০:৫৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
বগুড়া আদমদীঘিতে এজেন্ট ব্যাংকে গ্রাহকের টাকা আত্মসাৎ করে ব্যাংক কর্মকর্তা উধাও  নৌপুলিশের নিজ অর্থায়নে জেলেদের মাঝে শুকনা খাবার বিতরণ  হিংসুটে নেতা,কবি,সাহিত্যিক,সাংবাদিক হয়ে দেশ ও জাতির জন্য ভালো কিছু দিতে পারে না রাজশাহীতে প্রান্তিক জনগোষ্ঠিকে আইনী সহায়তায় প্রচার ও প্রসার বাড়াতে হবে: জেলা ও দায়রা জজ কুষ্টিয়া জেলার শ্রেষ্ঠ ওসি নির্বাচিত হয়েছেন ভেড়ামারা থানার অফিসার ইনচার্জ জহুরুল ইসলাম রাজশাহীতে ছোট ভাইয়ের বউকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে ভাসুর কারাগারে গোদাগাড়ীর রফিকুল হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটন হলেও ধরা হয়নি আসামী সাত মাসেও সন্ধান মিলছে না প্রধানমন্ত্রীর অনুদানের চেক বদলগাছীর অন্ধ সাত্তারের হাতে বগুড়ায় সচেতনামূলক ” নো হেলমেট ”  নো ফুয়েল  কার্যক্রম শুরু ভেড়ামারায় ট্রেনের দাবিতে  মানববন্ধন প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত

গোয়ালন্দে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করায় ড্রেজার মেশিন ধ্বংস

ডেইলী নিউজ বাংলা ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৬ অক্টোবর, ২০২০

রাজবাড়ী প্রতিনিধি: রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার মরা পদ্মা নদী হতে অবৈধ ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে বালু উত্তোলন করায় ড্রেজার মেশিনের শতাধিক পাইপ ধ্বংস করেছে স্থানীয় প্রশাসন। ২৬ অক্টোবর সোমবার দুপুরে গোয়ালন্দ উপজেলায় কর্মকর্তা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. রফিকুল ইসলাম এ অভিযান চালিয়ে অবৈধ ভাবে বালি উত্তোলন করা ড্রেজিং মেশিনের শতাধিক পাইপ ধ্বংস করেন। যার আথিক মূল্য প্রায় ২ লক্ষ টাকা। তবে স্থানীয়দের অভিযোগ এর আগেও প্রসাশনের লোকজন অবৈধ ড্রেজিং মেশিন ধ্বংস করলেও কয়েক দিনের মধ্যে সেখানে নতুন মেশিন বসিয়ে প্রভাবশালীরা নির্বিচারের বালু তুলে রমরমা বাণিজ্য করে।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, গোয়ালন্দে মরা পদ্মা নদীর উজানচর ইউনিয়নের ৭ নং ফৈজদ্দিন মাতুব্বর পাড়া এলাকায় বেশ কিছুদিন ধরে ড্রেজার দিয়ে বালু তুলছে স্থানীয় লাভলু ফকির, শমসের, জহিরুল মুন্সি, ইউসুফ সহ প্রভাবশালী কয়েকজন ব্যক্তি। উত্তোলিত বালু দীর্ঘ পাইপের মাধ্যমে তারা পাশ্ববর্তী ফরিদপুর সদর উপজেলার গোয়ালটিলা নামক জায়গায় ফেলে বালুর স্তুপ করছেন। সেখান থেকে চড়া দামে ট্রাকে বিভিন্ন জায়গায় বিক্রি করছে উত্তোলিত হওয়া বালু। এভাবে বালু উত্তোলনের ফলে হুমকির মুখে পড়েছে নদী পাড়ের মানুষেরা।

তাছাড়া শুষ্ক মৌসুমে ওই এলাকায় বোরো ধানের চাষ করতেন জমির মালিকরা। প্রাণ ভয়ে তারা তাদের নাম প্রকাশ না করারও অনুরোধ করেছেন। অভিযুক্তদের মধ্যে লাভলু ফকিরের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি দাবি করেন, ড্রেজার মেশিনটি আমার নিজের। তবে সেটা আমি জহিরুল মুন্সির নিকট ভাড়া দিয়ে দিয়েছি। জহিরুল ফরিদপুর সীমান্তের মধ্যে তাদের নিজস্ব জমি ও শরীকদের জমি হতে বৈধভাবে মাটি কাটছে। ওই জমি সরকারি খাস নয়, ব্যক্তি মালিকানাধীন। এছাড়া আমরা কাউকে কোনরূপ হুমকি বা ভয়ভীতি দেখাইনি।

এটা উদ্দেশ্যমূলক অভিযোগ। এ প্রসঙ্গে গোয়ালন্দ উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ রফিকুল ইসলাম জানান, অবৈধ ভাবে মরা পদ্মা নদী থেকে বালু উত্তোলনের খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে ড্রেজার মেশিনের শতাধিক পাইপ ধ্বংস করা হয়েছে। এ কাজের সাথে জড়িতে কাউকে ধরতে না পাড়ায় তাদের শাস্তির আওতায় আনা সম্ভব হয়নি। তবে এখন থেকে শুধু এখানে নয় উপজেলার কোথায় ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধ ভাবে কেউ বালু উত্তোলন করতে না পারে সে দিকে বিশেষ নজর রাখা হবে বলে জানান এই কর্মকর্তা।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো সংবাদ