1. zillu.akash@gmail.com : admi2017 :
  2. editor@dailynewsbangla.com : Daily NewsBangla : Daily NewsBangla
শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০২:০৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
ভেড়ামারায় পদ্মা নদীতে অজ্ঞাত মরদেহ উদ্ধার নোয়াখালীতে সাংবাদিক অনু’র মুক্তির দাবিতে বিএমএসএস এর মানববন্ধন। টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষনের ছাপানো অনুলিপি বিতরণ। দশমিনায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ আভিযান টাঙ্গাইলের শিহাব হত্যা মামলায় ৪ আসামির আত্মসমর্পণ, জামিন নামঞ্জুর। কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় সরকারি লীজকূত চন্দনা নদীর জলমহল অবৈধ ভাবে দখলের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন দৌলতপুরে শিল্পকলা একাডেমির নির্বাহী কমিটি গঠন দশমিনায়  শিক্ষা সপ্তাহ-২০২২ উপলক্ষে  শ্রেষ্ঠ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও  শিক্ষক  শিক্ষার্থীদের মাঝে সন্মননা ক্রেস্ট বিতরন সালথায় সমাজকর্ম ও শিশু সুরক্ষায় সমাজকর্মীদের গুরুত্ব বিষয়ে র‌্যালি  অনুভবে_খুঁজে_ফেরা

থালা হাতে রাস্তায় রাজশাহীর ব্যবসায়ীরা

ডেইলী নিউজ বাংলা ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৮ জুলাই, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক : “ভাত দে, না হয় দোকান খুলে দে, ভাত দে, না হয় বিষ দে। এই দ্বিমুখি লকডাউন মানিনা মানব না। এই স্লোগান নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দ্রুত দোকান খোলার দাবীতে আজ বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজশাহী ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের ব্যানারে রাজশাহী সাহেব বাজার আরডিএ মার্কেটের সামনের রাস্তায় থালা হাতে বসে বিক্ষোভ করেন সাহেব বাজারসহ বিভিন্ন মার্কেটের শত শত ব্যবসায়ী ও কর্মচারীরা।

এ সময়ে তারা ভাত দে, না হয় দোকান খুলে দে, ভাত দে না হয় বিষ দে বলে স্লোগান দিতে থাকেন। ব্যবসাযী নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকার জনগণকে বাঁচানোর জন্য লকডাউন দিয়েছেন। কিন্তু দ্বৈতনীতী অনুসরন করে লকডাউন চলতে পারে না। নিত্যপন্য দ্রব্যের দোকান, কাঁচা বাজার, রিক্সা, ভ্যান, ফুটপাতের অনেক দোকান, শিল্প কলকারখানা খোলা রয়েছে।

এছাড়াও খোলা রয়েছে টিসিবি এর পন্য বিক্রয় এবং গ্রাম এলাকার সকল বাজার, গরুর হাট ও পাড়া মহল্লার সকল প্রকার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। সেখানে স্বাস্থ্য বিধির কোন বালাই নাই। তারা যদি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলে ব্যবসা করতে পারে, তাহলে বাজারে ব্যবসায়ীদের অপরাধ কোথায়। তারাও কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকান খুলে ব্যবসা করতে চান বলে জানান।

আগামী শনিবার থেকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান যে কোন মূল্যে খুলবেন বলে বিক্ষোভ থেকে তারা এই হুঁশিয়ারী দেন। তারা বলেন, দেড় বছর থেকে তারা এই বিপদের মধ্যে রয়েছেন। রোজার ঈদে সামান্য সুযোগ পেলেও ঈদের পর থেকে আবারও লকডাউনে রাজশাহী সাহেব বাজারসহ নগরীর বিভিন্ন প্রধান প্রধান মার্কেট বন্ধ রয়েছে। এতে করে ব্যবসায়ী ও কর্মচারীরা মানবেতর জীবন যাপন করছে।

অনেক ব্যবসায়ী ও কর্মচারী না খেয়ে দিনাদিপাত করছেন। ঋনের বোঝা মাথায় নিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। এছাড়াও এনজিও কিস্তির অত্যাচারে বাড়িতে বসতে পারছেন না। এই অবস্থা আর কিছুদিন চললে আত্মহত্যা ছাড়া কোন উপায় থাকবেনা বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন ব্যবসায়ীরা।

এই অবস্থা থেকে তাদের বাঁচতে শনিবার থেকে দোকান খোলার অনুমতি দেয়ার জন্যও সরকার তথা প্রধানমন্ত্রীর প্রতি দাবী জানান ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ। সেইসাথে দোকান খোলাসহ সাত দফা দাবী নিয়ে বুধবার রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার বরাবরে একটি স্মারকলিপি দেন তারা।

বিক্ষোভ সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের সভাপতি হারুন অর রশিদ, সাধারণ সম্পাদক ফরিদ মাহমুদ হাসান, রাজশাহী বস্ত্র ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি অশোক কুমার সাহা, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার শামীম আহম্মেদ, রাজশাহী ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইয়াসিন আলী, মাসুদুর রহমান সজন, সদস্য পলাশ, পাদুকা ব্যবসায়ী সমিতির সহ-সভাপতি মিলন, সাধারণ সম্পাদক রিপন, ক্রোকারিজ সমিতির সভাপতি আবু জামান তাপস ও সাধারণ সম্পাদক আশাসহ ঐক্য পরিষদের অন্যান্য সদস্য এবং ব্যবসায়ী ও কর্মচারীবৃন্দ।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো সংবাদ